শিরোনাম
যুব মহিলালীগ এর সদস্য জিন্নাত সুলতানা ঝুমার উদ্যোগে প্রধানমন্ত্রীর ৭৬তম জন্মদিন উদযাপন গণপরিবহনে ভাড়া: ই-টিকিটিংয়ে স্বস্তির বার্তা আনোয়ারা উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক পদে সিভি জমা দিলেন আব্দুল হালিম পঞ্চগড়ে নৌকাডুবিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫০ এক সপ্তাহে করোনায় মৃত্যু বেড়েছে ১৮০ শতাংশ জেলা প্রশাসনের সাইনবোর্ড উধাও রাতের আধারে চলে কস্তুরাঘাট প্যারাবন দখলের প্রতিযোগিতা অভিবাসী কর্মীদের অধিকার বাস্তবায়নে জনমত তৈরিতে গণস্বাক্ষর ক্যাম্পেইন চট্টগ্রামে বিএনপির ৬৮ নেতাকর্মীর নামে মামলা ইপিজেডে স্বামীর নির্যাতনে ৩ সন্তানের জননীর মৃত্যু ভেটারেন ফুটবলের সেমিফাইনালে পতেঙ্গার ইউসুফ বলী স্মৃতি সংসদ
বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০২:৪৯ অপরাহ্ন

বিভেদ ভুলে এক মঞ্চে ৪০নং ওয়ার্ড আ.লীগ নেতৃবৃন্দ

হাসান রিফাত / ৩৩৭ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১

ওয়ার্ড ও থানা ইউনিটের সম্মেলনকে সামনে রেখে সব বিভেদ ভুলে এক মঞ্চে মিলিত হয়েছেন উত্তর পতেঙ্গা ৪০নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ। আজ বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টায় কেইপিজেড বেপজা অফিস সংলগ্ন কাসাব্লাংকা রেস্টুরেন্টে স্বাস্থ্যবিধি মেনে উত্তর পতেঙ্গা ৪০নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের এক বিশেষ বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এর আগে দীর্ঘদিন ধরে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের মধ্যে বিরোধের কারণে বিভিন্ন জাতীয় ও রাজনৈতিক অনুষ্ঠানে তাঁরা পৃথকভাবে কর্মসূচি পালন করে আসছিল।

তবে সম্প্রতি চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের হস্তক্ষেপে এই দুই নেতা এক মঞ্চে উপস্থিত হয়েছেন।
আজকের বর্ধিত সভায় উপস্থিত ছিলেন ৪০নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি কাউন্সিলর আবদুল বারেক কোম্পানি ও সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন চৌধুরী আজাদসহ ওয়ার্ড ও থানা আওয়ামীলীগের বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দ।

বৈঠকে অনুষ্ঠিত একাধিক নেতাকর্মী জানান, বহু দিন পর এক মঞ্চে দুই নেতাকে দেখতে পেয়ে নেতাকর্মীদের মধ্যে স্বস্তি ফিরে এসেছে। তারা বলেন, সভায় দুই নেতাকেই বেশ স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করতে দেখা গেছে। সম্মেলনকে কেন্দ্র করে আবারও চাঙা হচ্ছে পতেঙ্গা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক নেতা বলেন, মূলত কাউন্সিলর নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দুই নেতার মধ্যে বিরোধ সৃষ্টি হয়। আজ দীর্ঘদিন পর দুই নেতাকে একসাথে দেখে ভালো লাগলো। আশা করি সম্মেলনের পরেও এই বন্ধন টিকে থাকবে।

জানা যায়, বিগত সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে দলীয় মনোনয়নের জন্য লড়েছিলেন আবদুল বারেক কোম্পানি, জয়নাল আবেদীন চৌধুরী আজাদ ও আওয়ামী লীগ নেতা ফরিদুল আলম সহ কয়েকজন দলীয় নেতাকর্মী। কিন্তু শেষ পর্যন্ত নৌকার টিকেট হাতে পান আবদুল বারেক কোম্পানি। তারপর থেকেই দুই নেতার মধ্যে বিরোধ বাড়তে থাকে।

আজকের বৈঠকে মহানগর আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সদস্য কামরুাল হাসান বুলু, সাবেক কাউন্সিলর হাজী জয়নাল আবেদীনসহ সিনিয়র নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ