শিরোনাম
আহম্মদীয়া হাফেজিয়া ফোরকানিয়া সুন্নিয়া মাদ্রাসা ও এতিমখানার উদ্যোগে ঈদে মিলাদুন্নবী মাহফিল অনুষ্ঠিত। পতেঙ্গায় সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মৌন প্রতিবাদ। কুমারী দিঘীরপাড় এলাকাবাসির উদ্যোগে ঈদে মিলাদুন্নবী মাহফিল অনুষ্ঠিত ফটিকছড়ি সৈয়দ বাড়ী দরবার শরীফের জসনে জুলুস পীর সাবের শাহ এর সদারতে অনুষ্ঠিত হলো চট্টগ্রামের বৃহত্তর জসনে জুলুশ লোহাগাড়ার চুনতিতে দিন-দুপুরে মুদি দোকানে চুরি মাদ্রাসার ৬ শিক্ষার্থীর চুল কাটলেন শিক্ষক নকশা সংশোধন সিমেন্ট ক্রসিং মোড়ে যুক্ত হচ্ছে র‌্যাম্প নিজের তৈরি বিমানের যাত্রী হবার স্বপ্ন আশিরের পতেঙ্গা সি-বিচ দোকান মালিকদের মেয়রের উপহার প্রদান
বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১০:১৮ পূর্বাহ্ন

বিভেদ ভুলে এক মঞ্চে ৪০নং ওয়ার্ড আ.লীগ নেতৃবৃন্দ

হাসান রিফাত / ১৩৭ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১

ওয়ার্ড ও থানা ইউনিটের সম্মেলনকে সামনে রেখে সব বিভেদ ভুলে এক মঞ্চে মিলিত হয়েছেন উত্তর পতেঙ্গা ৪০নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ। আজ বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টায় কেইপিজেড বেপজা অফিস সংলগ্ন কাসাব্লাংকা রেস্টুরেন্টে স্বাস্থ্যবিধি মেনে উত্তর পতেঙ্গা ৪০নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের এক বিশেষ বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এর আগে দীর্ঘদিন ধরে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের মধ্যে বিরোধের কারণে বিভিন্ন জাতীয় ও রাজনৈতিক অনুষ্ঠানে তাঁরা পৃথকভাবে কর্মসূচি পালন করে আসছিল।

তবে সম্প্রতি চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের হস্তক্ষেপে এই দুই নেতা এক মঞ্চে উপস্থিত হয়েছেন।
আজকের বর্ধিত সভায় উপস্থিত ছিলেন ৪০নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি কাউন্সিলর আবদুল বারেক কোম্পানি ও সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন চৌধুরী আজাদসহ ওয়ার্ড ও থানা আওয়ামীলীগের বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দ।

বৈঠকে অনুষ্ঠিত একাধিক নেতাকর্মী জানান, বহু দিন পর এক মঞ্চে দুই নেতাকে দেখতে পেয়ে নেতাকর্মীদের মধ্যে স্বস্তি ফিরে এসেছে। তারা বলেন, সভায় দুই নেতাকেই বেশ স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করতে দেখা গেছে। সম্মেলনকে কেন্দ্র করে আবারও চাঙা হচ্ছে পতেঙ্গা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক নেতা বলেন, মূলত কাউন্সিলর নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দুই নেতার মধ্যে বিরোধ সৃষ্টি হয়। আজ দীর্ঘদিন পর দুই নেতাকে একসাথে দেখে ভালো লাগলো। আশা করি সম্মেলনের পরেও এই বন্ধন টিকে থাকবে।

জানা যায়, বিগত সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে দলীয় মনোনয়নের জন্য লড়েছিলেন আবদুল বারেক কোম্পানি, জয়নাল আবেদীন চৌধুরী আজাদ ও আওয়ামী লীগ নেতা ফরিদুল আলম সহ কয়েকজন দলীয় নেতাকর্মী। কিন্তু শেষ পর্যন্ত নৌকার টিকেট হাতে পান আবদুল বারেক কোম্পানি। তারপর থেকেই দুই নেতার মধ্যে বিরোধ বাড়তে থাকে।

আজকের বৈঠকে মহানগর আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সদস্য কামরুাল হাসান বুলু, সাবেক কাউন্সিলর হাজী জয়নাল আবেদীনসহ সিনিয়র নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ